সিরিয়ার উদ্বাস্তুদের পাশে প্রিয়ঙ্কা, টুইটারে ট্রোলড, পাল্টা কী বললেন অভিনেত্রী দেখুন

By: web desk, abp ananda | Last Updated: Monday, 11 September 2017 5:51 PM
সিরিয়ার উদ্বাস্তুদের পাশে প্রিয়ঙ্কা, টুইটারে ট্রোলড, পাল্টা কী বললেন অভিনেত্রী দেখুন

নয়াদিল্লি:  অভিনেত্রী প্রিয়ঙ্কা চোপড়া সম্প্রতি ইউনিসেফ-এর দূত হিসেবে জর্ডনে একটি ক্যাম্পে গিয়েছিলেন। সেখানে সিরিয়া থেকে আসা বহু উদ্বাস্তু পরিবার রয়েছেন। তাঁদের সঙ্গে কথা বলে, তাঁদের করুণ অবস্থার কথা জেনে প্রিয়ঙ্কা সেখানকার কয়েকটি ছবি দিয়ে ইন্সটাগ্রামে তাঁর অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেছিলেন। সেখানে তিনি লিখেছিলেন বিশ্বের উচিত উদ্বাস্তু শিশুদের বাঁচার জন্যে, সুস্থ জীবন উপহার দেওয়ার জন্যে, তাঁদের মধ্যে শিক্ষার আলো পৌঁছনোর জন্যে আরও একটু বেশি উদ্যোগী হওয়া।

এই পোস্টের পরই টুইটারে নেটিজেনদের ট্রোলের মুখে পড়েন প্রিয়ঙ্কা। তাঁকে এক টুইটারাইট সরাসরি প্রশ্ন করেন, জর্ডনে না গিয়ে, ভারতের গ্রামগুলোতে কেন তিনি যান না? সেখানেওতো বহু শিশু অনাহারে খাবারের অপেক্ষায় রয়েছে।


তবে এই অযাচিত আক্রমণে মোটেই চুপ হয় যাননি পিসি। তিনি পাল্টা জবাব দেন, গত বারো বছরে তিনি ইউনিসেফ ইন্ডিয়ার দূত হিসেবে একাধিক জায়গায় গেছেন। কিন্তু রবীন্দ্র গৌতম নামে সেই ব্যক্তি কী করেছেন, তাঁর এতদিনের জীবনে? তারপরই পিসির প্রশ্ন, কেন একজন বা কোনও এক বিশেষ অঞ্চলের শিশুর সমস্যা আরেকজনের থেকে কম গুরুত্বপূর্ণ?

 

তারপরই তিনি বলেন, এটা কোনও সিরিয়ার সমস্যা নয়, কোনও একটি বিশেষ শিশুর সমস্যা নয়। সারা দুনিয়ার সমস্যা। এটা মানবসভ্যতার সঙ্গে জড়িত একটি সমস্যা। আর আমাদের প্রত্যেকের উচিত, সেই সমস্যায় এগিয়ে এসে তার সমাধান করা।সবাই মিলে যদি  এগিয়ে এসে এখনই পরবর্তী প্রজন্মকে রক্ষা  না করে, তাহলে এমন দিনও দূরে নয়, যখন শিক্ষার অভাবে এই শিশুরাই সন্ত্রাসবাদকে আপন করে নেবে।

২০১১ সাল থেকে গৃহযুদ্ধে বিধ্বস্ত সিরিয়া থেকে লক্ষাধিক মানুষ জর্ডন, লেবানন, তুরস্ক, ইরাক, মিশরে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। সেই উদ্বাস্তু সিরিয়াবাসীর বেশিরভাগ শিশুই কোথাও কোনও স্কুলে ভর্তি হতে পারেনি। সেই সমস্ত শিশুদের পাশে দাঁড়িয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ইউনিসেফ-এর মতো প্রতিষ্ঠান। আর তাঁদের দূত হিসেবে এখন জর্ডন সফরে গিয়েছেন প্রিয়ঙ্কা।


 

 

 

 


Today was very emotional. As we go about our daily privileged lives, it’s hard to imagine that everything can be taken from you in an moment. Today we spent the day in a host community meeting Syrian refugee families (like this one) so desperately seeking a safe place of normalcy for their families. More than 80% of the Syrian refugees in Jordan live outside refugee camps in cities, urban centers and farming villages (host communities.) Amman hosts the largest number of Syrian refugees, about 180,000 people. Refugee families in host communities have limited livelihood opportunities, and after 6 years, have depleted their savings and borrowed money from everywhere to feed and support their families. @unicef #ChildrenUprooted #TheyAreUs

A post shared by Priyanka Chopra (@priyankachopra) on

 

This is Ammar(5), Ayat(8), Sulaiman (5 months) Wardshan(9) and they have an elder brother Saleh(10) who works at a grocery store to help supplement the family income, for only 2 Jordanian Dinar (that’s less than $3 USD.) Their father is a day laborer. Sulaiman needs a 2nd surgery because he has a clot in his nose. The family moved from Syria to Jordan 5 years ago. When I asked their mother what would be her wish…considering the war hasn’t ended, she said “if we can’t go home all I want is for my kids to get an education so they can fend for themselves when they are older and help rebuild Syria. We are blessed, we have enough to survive…others have much less.” They didn’t even have furniture in their home. The largesse of heart and compassion she had through her tears moved me to pieces. PLS GO TO www.unicef.org and DONATE whatever you can… let’s make this a collective #MissionForChildren #ChildrenUprooted #PCInJordan #ChildrenOfSyria @unicef

A post shared by Priyanka Chopra (@priyankachopra) on

 

First Published: Monday, 11 September 2017 5:28 PM