সিকিমে বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন চলছে বলায় বিতর্কে প্রিয়ঙ্কা, চাইলেন ক্ষমা

By: ABP Ananda, Web desk | Last Updated: Thursday, 14 September 2017 4:25 PM
সিকিমে বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন চলছে বলায় বিতর্কে প্রিয়ঙ্কা, চাইলেন ক্ষমা

টরন্টো: সিকিম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রবল আক্রমণের মুখে শেষমেশ ক্ষমা চেয়ে নিলেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া।

সিকিমি ভাষার ছবি ‘পাহুনা’র প্রযোজনা করেছেন প্রিয়ঙ্কা। টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ছবির প্রচারে ব্যস্ত রয়েছেন তিনি। সেখানেই, প্রিয়ঙ্কা বলেন, সিকিমে বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন চলছে। তাঁর দাবি, তাঁর প্রযোজিত পাহুনাই হল প্রথম সিকিমি ছবি।

তিনি আরও বলেন, উত্তর পূর্ব ভারতের ছোট্ট রাজ্য সিকিম। এখানে কোনও ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি নেই, এখানকার কেউ কোনওদিন ছবি করেনি। এই এলাকা থেকে বার হওয়া এটাই প্রথম ছবি কারণ বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন চলায় সিকিমের পরিস্থিতি অত্যন্ত জটিল ও সমস্যাসঙ্কুল।

তাঁর এই মন্তব্য নিয়ে টুইটারে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়তে হয় প্রিয়ঙ্কাকে। সকলে এক বাক্যে জানিয়েছেন, সিকিম গোটা দেশেরই অন্যতম শান্তিপূর্ণ রাজ্য আর এ রাজ্য থেকে বহু ছবি মুক্তি পেয়েছে। এধরনের আলটপকা মন্তব্য করার জন্য অনেকেই তাঁকে ‘বোকা’, ‘ক্ষুদ্র-বুদ্ধিসম্পন্ন’ বলে কটাক্ষ করেন। অনেকে আবার তাঁর ভূগোলের জ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

সিকিমের বিশিষ্ট চিত্রনাট্যকার বিশ্বতোষ সিনহা বলেন, কিছু বলার আগে নিজের তথ্য যাচাই করুন। আরেকজন বলেছেন, উনি কি সিকিম এবং উত্তর-পূর্বের বাকি রাজ্যগুলির তফাত জানেন? এভাবেই ভারতের মানহানি হয়ে থাকে।

এরপরই ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামে টিম পিসি (প্রিয়ঙ্কা চোপড়াকে অনেকে এই নামে ডাকেন)। জানা গিয়েছে, সিকিমের পর্যটন মন্ত্রী উগেন গ্যাতসোর সঙ্গে যোগাযোগ করে ক্ষমা চেয়ে নেন অভিনেত্রী। মন্ত্রী জানান, প্রিয়ঙ্কার প্রোডাকশন হাউস পার্পল পেবেল পিকচার্সের তরফে তাঁর কাছে মৌখিক ও লিখিতভাবে ক্ষমা চাওয়া হয়েছে। এমনকী, অভিনেত্রীর মা মধূ চোপড়াও গ্যাতসোকে ফোন করে ক্ষমা চেয়েছেন বলে খবর।

দেখুন নেটিজেনদের প্রতিক্রিয়া–









First Published: Thursday, 14 September 2017 10:33 AM