রাহুলের আমেরিকার বক্তৃতায় উদ্ধুদ্ধ হয়েই এনএসইউআইকে জেতালেন দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা, বললেন মাকেন

By: Web Desk, ABP Ananda | Last Updated: Wednesday, 13 September 2017 9:33 PM
রাহুলের আমেরিকার বক্তৃতায় উদ্ধুদ্ধ হয়েই এনএসইউআইকে জেতালেন দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা, বললেন মাকেন

নয়াদিল্লি: দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রভোটে দলীয় ছাত্র সংগঠনের দারুণ সাফল্যের জন্য রাহুল গাঁধীকে কৃতিত্ব দিলেন দিল্লি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অজয় মাকেন।

আমেরিকা সফরে গিয়ে কংগ্রেস সহ সভাপতির গতকালের ভাষণ সোস্যাল মিডিয়া, টিভি চ্যানেলের কল্যাণে শুনে ভাল লেগেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের, তাঁরা এনএসইউআইকে ভোট দিয়েছেন। এমনই দাবি করলেন তিনি।

সোমবার স্বামী বিবেকানন্দের শিকাগো ভাষণের ১২৫-তম বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভাষণ দেশব্যাপী উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে সম্প্রচার করা হয়েছে। মাকেনের দাবি, পড়ুয়ারা মোদীর ভাষণ যেমন শুনেছেন, তেমনই কংগ্রেস সহ সভাপতির বক্তব্যও শুনেছেন। কিন্তু মোদীর কথা তাঁদের ভাল লাগেনি, বরং রাহুলের বক্তৃতা তাঁদের মনে ধরেছে। তাতে উদ্বুদ্ধ হয়েই এনএসইউআইকে ঢেলে ভোট দিয়েছেন তাঁরা।

বুধবার দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ইউনিয়নের ভোটগণনায় জয়জয়কার হয় এনএসইউআইয়ের। সভাপতি, সহ সভাপতি, দুটি পদেই জেতে তারা। বাকি দুটিতে জয়ী ঘোষিত হন এবিভিপি প্রার্থীরা। মাকেন বলেন, ছাত্রছাত্রীরা দুটি ভাষণ শুনে তুলনামূলক বিচার করে এনএসইউআই ও কংগ্রেসকেই বেছে নিয়েছেন।

ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষণে রাহুলের পরিবারতন্ত্রকেন্দ্রিক রাজনীতি সম্পর্কে বক্তব্যের ব্যাপক নিন্দা, সমালোচনা হলেও তা মানতে নারাজ ইউপিএ জমানায় কেন্দ্রে মন্ত্রী থাকা মাকেন।

পরিবারতন্ত্র ভারতের জনজীবনে বাস্তব সত্য বলে অভিমত জানিয়ে রাহুল কার্যত তা সমর্থন করায় তুমুল কটাক্ষ, সমালোচনার মুখে পড়েছেন। মাকেন বলেন, সোস্যাল মিডিয়ায় যে অংশটি রাহুলের বক্তব্যের নিন্দা করেছে, তা নিয়ন্ত্রণ করছে হাজারখানেক লোক। তারা চালিত হচ্ছে সেই লোকটি দ্বারা যিনি দেশ চালাচ্ছেন। সেটাই পড়ুয়ারা ভাল মতো বুঝে নিয়ে ভোটে জবাব দিয়েছেন।

এদিকে বিজেপি, কেন্দ্রীয় সরকারের হস্তক্ষেপে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভোটগণনায় কারচুপি করে তাদের একটি পদে হারিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ এনএসইউআইয়ের। মাকেন জানান, এ ব্যাপারে তাঁরা হাইকোর্টে যাবেন।

First Published: Wednesday, 13 September 2017 9:33 PM