ফের জাকির নায়েককে হাজিরার সমন পাঠাল এনআইএ, ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ

By: Web Desk, ABP Ananda | Last Updated: Monday, 20 March 2017 4:37 PM
ফের জাকির নায়েককে হাজিরার সমন পাঠাল এনআইএ, ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ

মুম্বই: বিতর্কিত ইসলামি ধর্মপ্রচারক জাকির নায়েক কীভাবে নিজের এনজিও ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশনের তহবিল থেকে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে অর্থ ঢেলেছে, সে ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য দিয়েছে ঘনিষ্ঠরা। এ ব্যাপারকে জাকিরকে জেরা করতে পারে এনআইএ। সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা রুজু হওয়ার পর তাঁকে ৩০ মার্চ নয়াদিল্লিতে এনআইএ দপ্তরে হাজিরার সমন পাঠিয়েছে তারা। জাকিরের মুম্বইয়ের বাসভবনে পাঠানো সমন-নোটিশ  গ্রহণ করেছে তাঁর সংস্থার লোকজন। এই নিয়ে দ্বিতীয়বার তাঁকে নোটিস পাঠানো হল। আগের নোটিসটি পাঠানো হয়েছিল ১৪ মার্চ। জাকির ও তাঁর এনজিও-র বেশ কয়েকজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ধর্মের ভিত্তিতে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগও আনা হয়েছে।

তাঁকে এর আগে একাধিক সমন পাঠিয়েছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটও (ইডি)। সেই তালিকায় যোগ হল আরও একটির।

জাকির নিজের এনজিও-কে হাওয়ালা লেনদেনে কাজে লাগিয়েছেন, নিজের স্ত্রী, বোনের ভারতীয় অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে বিদেশে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে কোটি কোটি টাকা পাচার করেছেন বলেও জানিয়েছে তাঁর ঘনিষ্ঠরা।

ঢাকা হামলায় জড়িত সন্ত্রাসবাদীরা জাকিরের ভাষণে উদ্ধুদ্ধ হয়েছিল বলে প্রকাশ্যে জানানোর পর থেকেই তিনি গা ঢাকা দিয়েছেন। সম্ভবত, সৌদি আরবে রয়েছেন জাকির।  জেরার মুখোমুখি হতে এনআইএ-র সামনে না এলে তাঁর কয়েক কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হতে পারে। ইউএপিএ-র নানা ধারায় তো বটেই, জাকিরের বিরুদ্ধে সম্প্রীতির পরিপন্থী কাজকর্মে যুক্ত থাকার অভিযোগও রয়েছে।

গত বছরের নভেম্বরে জাকির ও তাঁর সঙ্গীদের নামে এফআইআর রুজু করে এনআইএ।  তাদের অভিযোগ, মুসলিম যুবকদের ক্ষেপিয়ে তুলে সন্ত্রাস ছড়ানোর ছক ছিল জাকিরের।

ইউএপিএ-র আওতায় কেন্দ্র ইতমধ্যেই জাকিরের এনজিও-কে বেআইনি সংস্থা বলে ঘোষণা করেছে।  সম্প্রতি দিল্লি হাইকোর্ট সেই পদক্ষেপ সঠিক বলে রায় দিয়েছে। আদালতের অভিমত, জাকিরের আইআরএফ, তার প্রেসিডেন্ট ও সদস্যরা ‘বেআইনি কার্যকলাপে’ মদত দিয়েছেন। অবশ্য যাবতীয় অভিযোগ খারিজ করেছেন জাকির।

First Published: Monday, 20 March 2017 3:28 PM

Related Stories

শোলেতে জয় কী করে মারা যায় জানেন? ঘরে টয়লেট ছিল না বলে
শোলেতে জয় কী করে মারা যায় জানেন? ঘরে টয়লেট ছিল না বলে

রাঁচি: অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি। আপনি হয়তো জানেন না। কিন্তু রাঁচি নগর নিগম

জিপের সামনে কাশ্মীরী যুবককে বাঁধা মেজরকে পুরস্কৃত করল সেনা
জিপের সামনে কাশ্মীরী যুবককে বাঁধা মেজরকে পুরস্কৃত করল সেনা

নয়াদিল্লি: জিপের বনেটে এক পাথর ছোঁড়া বিক্ষোভকারীকে বেঁধে গোটা এলাকা

ম্যানচেস্টার বিস্ফোরণে শোকপ্রকাশ প্রধানমন্ত্রীর
ম্যানচেস্টার বিস্ফোরণে শোকপ্রকাশ প্রধানমন্ত্রীর

নয়াদিল্লি: ম্যানচেস্টার বিস্ফোরণের ঘটনায় শোকপ্রকাশ করলেন প্রধানমন্ত্রী

কুলভূষণ: আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতের নির্দেশ না মানলে ফল ভুগতে হবে পাকিস্তানকে, হুঁশিয়ারি কংগ্রেসের
কুলভূষণ: আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতের নির্দেশ না মানলে ফল ভুগতে হবে...

নয়াদিল্লি: কুলভূষণ যাদব মামলায় আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতের নির্দেশ না মানলে

ডিভোর্সে তিন তালাক নয়, পাত্রপাত্রীদের নিকাহ-র সময় বলতে নির্দেশ দেওয়া হবে কাজিদের, সুপ্রিম কোর্টে এআইএমপিএলবি
ডিভোর্সে তিন তালাক নয়, পাত্রপাত্রীদের নিকাহ-র সময় বলতে নির্দেশ...

নয়াদিল্লি: যে মুসলিমরা তিন তালাক দেবে, তাদের সামাজিক বয়কট করা হবে। মুসলিম

এবিপি নিউজ-লোকনীতি সিএসডিএস সমীক্ষা: উত্তর ভারতে এনডিএ-র ভোটের হার বাড়লেও কমতে পারে আসন সংখ্যা
এবিপি নিউজ-লোকনীতি সিএসডিএস সমীক্ষা: উত্তর ভারতে এনডিএ-র ভোটের হার...

নয়াদিল্লি: আগামী ২৬ তারিখ কেন্দ্রে তিন বছর পূর্ণ করছে মোদী সরকার। এই তিন

এবিপি নিউজ-লোকনীতি সিএসডিএস সমীক্ষা: এখনই ভোট হলে এরাজ্য সহ পূর্ব ভারতে এনডিএ-র জয়জয়কার
এবিপি নিউজ-লোকনীতি সিএসডিএস সমীক্ষা: এখনই ভোট হলে এরাজ্য সহ পূর্ব...

নয়াদিল্লি: আগামী ২৬ তারিখ কেন্দ্রে তিন বছর পূর্ণ করছে মোদী সরকার। এই তিন

আইএএস অফিসারের মৃত্যুতে খুনের মামলা দায়ের করল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ
আইএএস অফিসারের মৃত্যুতে খুনের মামলা দায়ের করল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ

লখনউ: মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গে দেখা করে কর্নাটক ক্যাডারের

অমানবিক! অ্যাম্বুলেন্স দিল না হাসপাতাল, স্ট্রেচারে স্ত্রীর মৃতদেহ নিয়ে গেলেন স্বামী
অমানবিক! অ্যাম্বুলেন্স দিল না হাসপাতাল, স্ট্রেচারে স্ত্রীর মৃতদেহ...

কৌসাম্বী:  ওড়িশায় দানা মাঝিকাণ্ড, গাড়ি না পেয়ে মায়ের দেহ ভেঙেচুরে নিয়ে

চিকিৎসার খরচ জোগাড়ে অক্ষম, অসুস্থ শিশুদের শ্বাসরোধ করে হত্যার পর বিষ খেলেন মহিলা
চিকিৎসার খরচ জোগাড়ে অক্ষম, অসুস্থ শিশুদের শ্বাসরোধ করে হত্যার পর...

কোটা: দীর্ঘদিন ধরে রোগে ভুগছিল তিন বছরের মেয়ে এবং দেড় বছরের ছেলে। তাদের

Recommended