মেডিকা: স্বাস্থ্য ভবনের দ্বারস্থ মৃত সুনীল পাণ্ডের পরিবার, বুধবার সাক্ষাত মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে

By: Rajarshi Dutta Gupta & Ranjit Sau, ABP Ananda | Last Updated: Tuesday, 14 March 2017 9:36 PM
মেডিকা: স্বাস্থ্য ভবনের দ্বারস্থ মৃত সুনীল পাণ্ডের পরিবার, বুধবার সাক্ষাত মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে

কলকাতা:  হৃদরোগের চিকিৎসা করাতে গিয়ে পা কেটে বাদ দেওয়া ও গাফিলতিতে রোগীমৃত্যুর অভিযোগে কাঠগড়ায় মেডিকা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল। মঙ্গলবার, স্বাস্থ্য দফতরের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব এবং স্বাস্থ্য অধিকর্তাকে চিঠি দিয়ে বিষয়টি জানিয়েছে মৃত সুনীল পাণ্ডের পরিজনরা। জানা গেছে, বুধবার সকাল ১১টায় কালীঘাটের বাড়িতে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন মৃতের স্ত্রী সুজাতা ও পরিবারের সদস্যরা।
সূত্রের খবর, ময়না তদন্তের সময় সুনীলের বুকে একটি কাটা দাগ দেখতে পেয়েছেন চিকিৎসকরা। কোথা থেকে এল এই দাগ? আকাশ থেকে পড়েছেন মৃতের আত্মীয়-পরিজনরা! মৃতের স্ত্রী সুজাতা পাণ্ডে বলেন, প্রতি ৩ মাস অন্তর চেক আপ করাতাম। কখনও অপারেশন হয়নি। একটা ছুঁচ পর্যন্ত ফোটানো হয়নি। বুকে যে দাগের কথা শুনছি, এটা কী করে হল? কিছুই বুঝতে পারছি না।
রহস্যময় ‘কাটা দাগে’র নেপথ্যে অন্য কিছু থাকতে পারে বলে সন্দেহ করছেন মৃতের আত্মীয়রা। মৃতের শ্যালক পুরুষশ্রেষ্ঠ পাণ্ডে বলেন, সুনীলের কখনও অপারেশন হয়নি। যদি দাগ থাকে তাহলে গভীর ষড়যন্ত্র। মেডিকার দাবি, সুনীলের বুকে অস্ত্রোপচার করা হয়নি। মেডিকা গ্রুপের মেডিক্যাল ডিরেক্টর কর্নেল সৌমেন বসু বলেন, আমরা কিছু বুকে করিনি। বুকে দাগের কোনও ব্যাপার নেই। যদি ওপেন হার্ট বা বাইপাস করতাম, তাহলে চেপে যাব কেন? বলব না কেন? এরকম কোনও কিছু হয়নি।
বুকে যন্ত্রণা অনুভব করায়, গত ৬ মার্চ মেডিকায় আনা হয় পাটুলির বাসিন্দা সুনীল পাণ্ডেকে। জরুরি বিভাগে থাকাকালীন হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। ৬ মার্চ প্রথমে অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি, তাঁর পর বাঁ পায়ে অস্ত্রোপচার হয় সুনীলের। ১১ মার্চ, সুনীলের হাঁটুর নিচ থেকে বাঁ পা কেটে বাদ দেওয়া হয়!
ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকদের প্রশ্ন, ৪ দিনে রোগীর শরীরে কী এমন পরিস্থিতি তৈরি হল, যে পা কেটে বাদ দিতে হল? উত্তর পেতে রোগীর ট্রিটমেন্ট হিস্ট্রি ও অস্ত্রোপচারের ভিডিওগ্রাফি চেয়েছে ময়নাতদন্তকারী দল। পুলিশ মারফত মেডিকার কাছে কাটা পা-টিও চেয়ে পাঠিয়েছে ময়নাতদন্তকারী দল। কিন্তু মেডিকা জানিয়েছে কাটা পা রাখা নেই! কর্নেল সৌমেন বসু আরও বলেন, যেহেতু মেডিকো-লিগাল কেস নয়, পথ দুর্ঘটনা নয়, তাই পরিবারেকে দেখিয়ে কাটা পা-টা নিয়মমাফিক ডিসপোজ অফ করে দেওয়া হয়েছে।
মৃতের পরিবার অবশ্য চিকিৎসায় গাফিলতিতে মৃত্যুর অভিযোগে এখনও অনড়। মৃতের স্ত্রী বলেন, যতদিন পারব লড়াই চালিয়ে যাব, আমি সুস্থ শরীর নিয়ে গেছিলাম, বডি নিয়ে ফিরলাম। যাতে আর কারও সাথে না হয়, লড়াই চালিয়ে যাব, সুনীল যেন বিচার পায়। পূর্ব যাদবপুর থানায় ৩০৪এ ধারায় গাফিলতিতে মৃত্যু এবং ৩৪ ধারায় একই উদ্দেশে একাধিক ব্যক্তির অপরাধ সংগঠিত করার অভিযোগে মামলা রুজু হয়েছে।
এদিন সুনীলের ট্রিটনেন্ট হিস্ট্রি পূর্ব যাদবপুর থানায় জমা দিয়েছে পরিবার। অন্যদিকে বসে নেই মেডিকাও। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে উঠে আসা তথ্যে বিস্ময় প্রকাশ করেছে তারা। সুনীল পাণ্ডের দেহে, ফের ময়নাতদন্ত করার আর্জি জানিয়ে রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তাকে চিঠি দিচ্ছে মেডিকা কর্তৃপক্ষ।

First Published: Tuesday, 14 March 2017 9:36 PM