শিশু-চুরি: বন্ধ হচ্ছে আয়া-রাজ, মেডিক্যালে রোগীদের আইডি কার্ড, ঢুকতে সচিত্র পরিচয়পত্র লাগবে পরিজনদের

By: Suman Gharai, Nemai Panda & Hindol Dey, ABP Ananda | Last Updated: Wednesday, 15 March 2017 8:46 PM
শিশু-চুরি: বন্ধ হচ্ছে আয়া-রাজ, মেডিক্যালে রোগীদের আইডি কার্ড, ঢুকতে সচিত্র পরিচয়পত্র লাগবে পরিজনদের

কলকাতা: শিশুচুরির জেরে মেডিক্যাল বন্ধ হচ্ছে আয়া-রাজ। থাকা যাবে না বাড়ির লোক পরিচয়ে। পরিজনদেরও থাকতে হবে সচিত্র পরিচয়পত্র। শিশুচুরি কাণ্ডে উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী। নবান্নে জরুরি বৈঠক। ২৪ তারিখ পর্যন্ত ধৃতদের পুলিশ হেফাজত।
সরকারি হাসপাতালগুলিতে আয়া-দৌরাত্ম্য নতুন কিছু নয়। রোগীর আত্মীয় সেজে আয়ারাই ঘুরে বেড়ায় হাসপাতালজুড়ে! ব্যতিক্রম নয় কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালও। নজরদারিতে ফাঁক থাকার কথা কবুল করে, নির্মল মাজি জানিয়েছেন, এবার কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে।
তৃণমূলের চিকিৎসক নেতা নির্মল মাজি বলেন, আয়া নিষেধই ছিল। কিন্তু আত্মীয় সেজে ঢুকে পড়ত। এবার ব্যবস্থা নেওয়া হবে। রোগীদের আইডি কার্ড দেওয়া হবে। বুকে ঝুলবে। রক্তের সম্পর্ক ছাড়া কোনও আত্মীয়কে ভিতরে থাকতে দেওয়া হবে না। সচিত্র পরিচয়পত্র লাগবে।

etx-arnab-child-recover-wt-
সরকারি হাসপাতাল থেকে শিশুচুরির ঘটনায় উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রীও। বুধবার নবান্নে একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেন তিনি। বৈঠকে ছিলেন– অর্থমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব, স্বাস্থ্যসচিব, স্বাস্থ্য অধিকর্তা, রাজ্য পুলিশের ডিজি, এডিজি (আইনশৃঙ্খলা) এবং কলকাতার পুলিশ কমিশনার।
সূত্রের খবর, আয়াদের জন্য পরিচয়পত্র চালু করা যায় কিনা, তা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়। শিশুচুরির কাণ্ডের জেরে মঙ্গলবার মেডিক্যাল কলেজে ভাঙচুর চালানো হয়। এর প্রেক্ষিতে কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে প্রশাসন। কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার বলেন, নতুন ভাঙচুর আইন কার্যকর হবে।
মঙ্গলবার শিশু চুরির ঘটনার ঘটার পর সন্দেহভাজনের ছবি লাগাতার সম্প্রচারিত হয় সংবাদমাধ্যমে। সন্ধে থেকে লাগাতার সেই ছবি দেখাতে থাকে এবিপি আনন্দ। শেষপর্যন্ত রাতে বাগমারি থেকে ধরা পড়ে অভিযুক্ত। মহিলা। উদ্ধার করা হয় শিশুটিকে।
এদিন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে সরস্বতীর শিশুপুত্রকে নিতে আসে পরিবার। কিন্তু খালি হাতে ফিরতে হয় পরিবারের সদস্যদের। সদ্যোজাত শিশু ভালো আছে, কিন্তু এদিন ছাড়া হবে না বলে জানিয়ে দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
অন্যদিকে, ধৃত চিন্ময়ী বেজ ও তাঁর স্বামীকে বুধবার আদালতে তোলা হলে তাঁদের হয়ে দাঁড়াননি কোনও আইনজীবী। দু’জনকেই ২৪ তারিখ পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

First Published: Wednesday, 15 March 2017 8:46 PM